রাজ্য

রাজ্যে আরও কমল করোনার অ্যাকটিভ কেস

রাজ্যে আরও কমল করোনার অ্যাকটিভ কেস

শীতকালে আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে করোনা। এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের আশঙ্কা সত্যি করে একাধিক দেশে আছড়ে পড়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। তবে সেদিক থেকে দেশের অবস্থা খানিকটা হলেও স্বস্তিজনক।

রাজ্যও ধীরে ধীরে করোনার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াচ্ছে। শুক্রবারের রিপোর্টের তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় যেমন অনেকটাই কম কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা। তেমনই ঊর্ধ্বমুখী সুস্থতার হার। বড়দিনের আগে যা নিঃসন্দেহে অনেকটাই স্বস্তির খবর।

এদিন রাজ্য স্বাস্থ্যদপ্তরের বুলেটিন অনুযায়ী, বাংলায় একদিনে করোনা (Corona Virus) আক্রান্ত হয়েছে ২ হাজার ১৫৫ জন। যার মধ্যে সর্বোচ্চ কলকাতায় (৫৩৯)। প্রত্যাশা মতোই তারপরই রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা।

একদিনে সে জেলায় আক্রান্ত ৪৮৫ জন। দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হুগলি ও হাওড়াতেও অব্যাহত সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় এই তিন জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন যথাক্রমে ১২৯, ১৩৬ ও ১২১ জন। এদিকে পাহাড়ে পর্যটকদের ভিড় বাড়তেই লাগামছাড়া হয়ে পড়েছিল দার্জিলিংয়ের করোনা পরিস্থিতি।

যদিও বর্তমানে তা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। একদিকে সেখানে আক্রান্ত ৭৩ জন। যদিও সংখ্যাটা গতকালের তুলনায় বেশ খানিকটা বেশি। সবমিলিয়ে বাংলার মোট করোনা আক্রান্ত ৫ লক্ষ ৩৪ হাজার ৮৫০ জন।

আরও পড়ুন: মমতা সরকারকে ফেলে দেয়ার হুমকি অমিত শাহের

গত কয়েকদিন ধরেই কমছে অ্যাকটিভ কেস। এদিনও ব্যতিক্রম হল না। বর্তমানে চিকিত্‍সাধীন করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৪৬০ জনে।

স্বস্তি দিয়ে বাড়ছে বাংলায় কোভিডজয়ীর সংখ্যাও। একদিনে করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ২ হাজার ৭১৭ জন। ফলে রাজ্যে মোট করোনা জয়ীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৫ লক্ষ ৭ হাজার ৭০ জন। সুস্থতার হার ৯৪.৮১।

তবে মারণ ভাইরাস এখনও প্রাণ কাড়ছে মানুষের। একদিনে ভাইরাসের বলি ৪৩ জন। যার মধ্যে শুধু কলকাতাতেই একদিনে প্রাণ হারিয়েছেন ৯ জন। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৯ হাজার ৩২০ জনের।

নতুন বছরের শুরুর দিকেই ভ্যাকসিন (Corona Vaccine) হাতে পাওয়ার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হচ্ছে ঠিকই। তবে যতদিন পর্যন্ত ভ্যাকসিন আসছে না ততদিন এই ভাইরাসকে রোখার একমাত্র পন্থা টেস্টিং। তাই রাজ্যে অব্যাহত টেস্টিং। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা পরীক্ষা হয়েছে ৪২ হাজার ২৫৭ জনের। এখনও পর্যন্ত মোট ৬৬ লক্ষ ৬৬ হাজার ৭৭ টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

 

সুত্র: সংবাদ প্রতিদিন

আরও পড়ুন ::

Back to top button