আন্তর্জাতিক

ধর্ষণ নিয়ে মন্তব্য: ইমরান খানকে এবার ধুয়ে দিলেন সাবেক স্ত্রী


ধর্ষণ নিয়ে মন্তব্য: ইমরান খানকে এবার ধুয়ে দিলেন সাবেক স্ত্রী - West Bengal News 24


পাকিস্তানে ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ার জন্য নারীদের পোশাককে দায়ী করে তোপের মুখে পড়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তার এই মন্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছেন মানবাধিকার কর্মীরা। ইমরানের সাবেক স্ত্রীও তাকে ছেড়ে কথা বলেননি। রীতিমতো ধুয়ে দিয়েছেন সাবেক কিংবদন্তি ক্রিকেটারকে।

ব্রিটেনের ফিল্মমেকার জেমিমা গোল্ডস্মিথকে বিয়ে করেছিলেন ইমরান খান। ১৯৯৫ সাল থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত টিকে ছিল তাদের সংসার। ইমরানের সাবেক স্ত্রী বিদ্রূপ করে বলেন, আমার ধারনা পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য মিসকোড করা হয়েছে। তিনি বরং বলতে চেয়েছেন ধর্ষণ কমাতে পুরুষের চোখে পর্দা দেওয়া উচিত।

কোরআনের একটি আয়াতের রেফারেন্স দিয়ে জেমিমা বলেন, কোরআনে পুরুষদের চক্ষু ও বিশেষ অঙ্গ সংযত রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন : বিশ্বে করোনা শনাক্ত ১৩ কোটি ৪৫ লাখ ছাড়াল

জেমিমার এই টুইট শেয়ার করেছেন দেশটির মানবাধিকার কর্মীরা।

সম্প্রতি পাকিস্তানের টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচারিত এক সাক্ষাৎকারে দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ধর্ষণ বেড়ে যাওয়ার জন্য অশ্লীলতা ও নারীদের খোলামেলা পোশাককে দায়ী করেন।


কাতারভিত্তিক সম্প্রচারমাধ্যম আল জাজিরার খবরে বলা হয়, ওই সাক্ষাৎকারে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নারীদের শালীন পোশাক পরার পরামর্শও দেন। তিনি বলেন, পর্দা করার সারবস্তুই হলো আকর্ষণ করা থেকে বিরত থাকা। নিজেকে বিরত রাখার ইচ্ছাশক্তি সবার নেই। সবাইকে পর্দা করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, যে সমাজে অশ্লীলতার প্রচলন আছে, সেখানে তার পরিণতিও রয়েছে ।

ইমরান খানের ওই মন্তব্যের পর প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছে মানবাধিকার সংগঠনসহ বিভিন্ন অধিকার সংগঠন।

মানবাধিকার সংগঠনগুলো বলেছে, প্রধানমন্ত্রী ‘ধর্ষণ কে ক্ষমার চোখে’ দেখতে চাচ্ছেন। নিজের মন্তব্যের জন্য তারা ইমরান খানকে ক্ষমা চাইতে বলেছেন এবং এ দাবির পক্ষে কয়েকশ স্বাক্ষর সংগ্রহ করা হয়েছে।

বুধবার দেশটির বহু বিখ্যাত ব্যক্তি এক বিবৃতিতে ইমরান খানের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছেন। ওই বিবৃতিতে ইমরান খানের মন্তব্যকে ‘ত্রুটিপূর্ণ, রূঢ় ও বিপজ্জনক’ বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, ধর্ষণের ঘটনার অপরাধ কেবলমাত্র ধর্ষকের ওপরই বর্তায় এবং (ইমরান খানের মন্তব্যের মতো) বক্তব্যের সংস্কৃতি ধর্ষককে উৎসাহিত করে।

এর আগে হিউম্যান রাইটস কমিশন অব পাকিস্তান মঙ্গলবার মন্তব্য করে, ইমরান খানের মন্তব্যে তারা ‘হতভম্ব’ হয়েছে।


Related Articles

Back to top button