জাতীয়

‘নরবলি’, উত্তরপ্রদেশে মন্দিরে উদ্ধার তরুণীর গলাকাটা ঝুলন্ত দেহ

মন্দিরের ভিতরে ঝুলছে গলার নলি কাটা তরুণীর দেহ। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উত্তরপ্রদেশের মেরঠের (Meerut Shocker) খারখোদা থানা এলাকায়। খবরটি জানাজানি হতেই গোটা এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। মন্দিরের মধ্যে আত্মঘাতী হয়েছেন এক তরুণী। এই খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান মেরঠের পুলিশ সুপার প্রভাকর চৌধুরি।

যতক্ষণে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে ততক্ষণে মৃতের পরিবার দেহের সত্‍কার করে ফেলেছে। যদিও প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের সন্দেহ, এটি একটি নরবলির (Human Sacrifice) ঘটনা। জানা গেছে, রক্তে মাখা তরুণীর দেহটি মন্দিরের মধ্যে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। বিগ্রহের গায়েও লেগেছিল রক্তের ছিটে। মাটির প্রদীপেও ছিল রক্ত।

আরো পড়ুন : আরও কমল জ্বালানির দাম, এক নজরে কলকাতা-সহ অন্যান্য শহরে পেট্রোলের দাম

মৃতের পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, বছর বাইশের তরুণী পোস্ট গ্রাজুয়েট ছাত্রী। শুধু তাই নয় ঠাকুর দেবতায় ভক্তিও খুব। সোমবার বিকেলে কাউকে কিছু না জানিয়েই বাড়ি থেকে বেরিয়েছিল। সময়মতো বাড়ি না ফেরায় পরিবারের তরফে খোঁজখবর শুরু হয়। স্থানীরা জানান, তাঁকে মন্দিরের দিকে যেতে দেখা গেছে।

সেখানে গিয়ে দেখা যায়, মন্দিরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। সবাই মিলে দররজা ভাঙতেই দেখা যায়, তরুণী রক্তে মাখামাখি ঝুলন্ত দেহ। এসব দেখে পুলিশে খবর না দিয়ে মেয়ের সত্‍কার করে ফেলে পরিবারের লোকজন।

আরো পড়ুন : বিনা অপরাধে ৬০৪ দিন সৌদির জেলে বন্দি, দেশে ফিরে পরিবারকে পেয়ে আপ্লুত যুবক

পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছাতেই পার্শ্ববর্তী গ্রামে আগুনের মতো রটে যায় মন্দিরে আত্ম বলিদান দিয়েছেন এক তরুণী। ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর মৃতের পরিবারের সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। ফরেন্সিক টিমও অকুস্থল থেকে প্রমাণ সংগ্রহ করে। প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্ট বলছে কুসংস্কারের জেরেই এই নরবলির ঘটনা ঘটেছে।

সূত্র: লেটেস্ট লি

আরও পড়ুন ::

Back to top button