পূর্ব মেদিনীপুররাজনীতি

পুলিশ ছাড়া তৃণমূল নেই! সব হিসেব হবে: শুভেন্দু

নন্দীগ্রামে প্রশাসন বিজেপির নেতা-কর্মীদের হেনস্থা করছে। এই অভিযোগেই এদিন প্রশাসনের পাশাপাশি তৃণমূলের নেতাদেরও নিশানা করলেন স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। এদিনের সভা থেকে তিনি প্রশ্ন করেন শেখ সুফিয়ান কোথায়?

প্রসঙ্গত ভোট পরবর্তী হিংসার মামলায় কলকাতা হাইকোর্ট সোমবারই তৃণমূলের ওই নেতার রক্ষাকবচ তুলে নিয়েছে।

এদিন শুভেন্দু অধিকারী অভিযোগ করেন, সিপিএম-এর মতোই তৃণমূল পুলিশকে দিয়ে সাধারণ মানুষের অপরে অত্যাচার করছে। তিনি সিপিএম আমলে নন্দীগ্রামে গুলি চালনার ঘটনায় পুলিশ আধিকারিকাক শেখর রায়ের নাম উল্লেখ করে বলেন, খোঁজ নিয়ে দেখুন, তাঁর অবস্থা। শারীরিক অবস্থা নিয়ে প্রশ্ন না করেই তিনি বলেন ওপর ওয়ালা বলে কিছু আছে।

শুভেন্দু অধিকারী এদিন অভিযোগ করেন, বিজেপি প্রশাসনের কাছে সভার অনুমতি চাইতে গেলেই তা দেওয়া হয় না। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেস কলকাতার নেতাদের নিয়ে এসে সভা করলেই তার অনুমতি দেওয়া হয়। প্রশাসনের বিরুদ্ধে দ্বিচারিতার অভিযোগ করে তীব্র নিন্দা করেন তিনি। বলেন, আগুন নিয়ে খেলা হচ্ছে।

এদিন তিনি সভায় প্রশ্ন করেন শেখ সুফিয়ান কোথায়। প্রসঙ্গত নন্দীগ্রামে ভোট পরবর্তী হিংসার এক মামলায় এর বিজেপি কর্মীর মৃত্যুর অভিযোগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্বাচনী এজেন্ট শেখ সুফিয়ানের জামাইসহ ১১ জনকে গ্রেফতার করেছে। সেই মামলাতেই শেখ সুফিয়ানকে হাইকোর্ট রক্ষা কবচ দিয়েছিল।

আরও পড়ুন: জল্পনার শেষ, তৃণমূলে যোগ দিলেন শ্রাবন্তী

কিন্তু সিবিআই-এর তরফ থেকে আদালতে আবেদন জানানোর পরে সোমবার সেই রক্ষাকবচ প্রত্যাহার করে নিয়েছে হাইকোর্ট। সেই সূত্র ধরেই এদিন শুভেন্দু অধিকারী প্রশ্ন করেন, শেখ সুফিয়ান কি জাহাজ বাড়িতে আছে? শুভেন্দু অধিকারী বলেন, গোপালচকে মহিলাদের গায়ে হাত দেওয়ার ঘটনায় ৩০ জনকে খুঁজছে সিবিআই। এছাড়াও আরও মামলা রয়েছে।

তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ৫৫ জন তৃণমূল নেতা অভিযুক্ত, এখনও সেই নামগুলো তিনি পকেট থেকে বের করেননি। বিভিন্ন এলাকায় বাড়ি ভাঙচুরের হিসেব দিয়ে তিনি বলেন, তারা ছেড়ে দেবেন না, সব হিসেব হবে। পুলিশ ছাড়া তৃণমূল নেই বলেও মন্তব্য করেন শুভেন্দু অধিকারী।

নন্দীগ্রামে তৃণমূলকে সুবিধা পাইয়ে দিচ্ছে প্রশাসন। বঞ্চনা আর স্বজনপোষণের অভিযোগেই সেখানকার কৃষি দফতরে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি। অভিযোগ এর জেরেই আক্রান্ত হন দফতরের কর্মী এবং আধিকারিকরা। শুভেন্দু অধিকারী এদিন ওই হেনস্থার ঘটনার নিন্দা করেন।

পাশাপাশি ওই ঘটনার জেরে বিজেপির নেতা-কর্মীদের পুলিশ হেনস্থা করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। এই ঘটনায় গ্রেফতার হওয়াদের মধ্যে রয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী ঘনিষ্ঠ নেতা মেঘনাদ পাল। যদি ১০ ভাগ অত্যাচার করে থাকে তাহলে বর্তমান শাসকরা ১০০ গুণ অত্যাচার করেছে।

 

 

সুত্র: One India Bengali

আরও পড়ুন ::

Back to top button