বিচিত্রতা

‘তাকে জন্মাতে দেওয়া উচিত হয়নি’ বলে ডাক্তারের বিরুদ্ধে মামলা করা তরুণী জিতলেন

ইভি টুম্বস স্পাইনা বিফিডা রোগে আক্রান্ত। জন্ম থেকেই তার মেরুদণ্ডটি ত্রুটিপূর্ণ। এজন্য তাকে মাঝেমধ্যেই টানা ২৪ ঘণ্টা কাটাতে হয় নলের সাহায্যে

জন্ম থেকেই দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত তিনি। মেরুদণ্ডের এই রোগ সারাজীবন বইতে হচ্ছে ব্রিটেনের তরুণীকে। এমন জীবন তো তিনি চাননি! কে চায় আজীবন এমন রোগ বয়ে বেড়াতে? জন্মের সময় কেন তার মাকে জানানো হয়নি এই রোগের কথা? প্রশ্ন তুলে মায়ের সেই ডাক্তারের বিরুদ্ধেই মামলা ঠুকেছিলেন ২০ বছর বয়সী তরুণী ইভি টুম্বস। এই মামলায় তার জয়ও হলো হাসতে হাসতেই।

ইভি টুম্বস স্পাইনা বিফিডা রোগে আক্রান্ত। জন্ম থেকেই তার মেরুদণ্ডটি ত্রুটিপূর্ণ। এজন্য তাকে মাঝেমধ্যেই টানা ২৪ ঘণ্টা কাটাতে হয় নলের সাহায্যে। ইভির দাবি ছিল, তাকে জন্মাতে দেওয়াই উচিত হয়নি ডাক্তারের।

অভিযোগ, ডা. ফিলিপ তার মাকে গর্ভবতী অবস্থায় সঠিক পরামর্শ দেননি। ডাক্তারেরই উচিত ছিল মাকে বলে দেওয়া, যে তার সন্তানের স্পাইনা বিফিডা রোগ হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। তার জন্য তাকে ফোলিক অ্যাসিড সাপ্লিমেন্টারি নেওয়ারও পরামর্শ দেওয়া উচিত ছিল ডাক্তারের। কিন্তু তিনি সেসব কিছুই করেননি।

আরও পড়ুন : কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে টাকা!

ইভি জানিয়েছেন, ডাক্তার যদি গর্ভাবস্থায় তার মাকে তেমন পরামর্শ দিতেন, স্পাইনা বিফিডার ঝুঁকির কথা জানিয়ে দিতেন, তবে হয়তো তার মা গর্ভপাত করতেন। আর তাহলে ইভির জন্মই হত না। অর্থাৎ নিজের এই বিকৃত জন্ম ইভির কাম্য ছিল না। আর তাই জন্মাতে দেওয়ার অভিযোগেই ডাক্তারকে আদালতের কাঠগড়ায় তুলেন তিনি। সেই মামলায় এসেছে সাফল্যও।

লন্ডন হাইকোর্ট এই মামলায় ঐতিহাসিক রায় ঘোষণা করেছেন। ইভিকে মোটা টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। তিনি বলেছেন, সত্যিই যদি ঠিকভাবে পরামর্শ দেওয়া হত ইভির মাকে, তাহলে তিনি হয়তো গর্ভধারণে আরও খানিক সময় নিতেন। আরও পরে গর্ভধারণ করলে হয়তো সুস্থ সন্তান জন্ম দিতে পারতেন তিনি।

মামলা জিতে যে মোটা টাকা ক্ষতিপূরণ পাচ্ছেন ইভি, তাতে তার সারাজীবনের চিকিৎসার খরচ উঠে যাবে। মামলার এই সাফল্যে খুশি ইভি ও তার মা।

আরও পড়ুন ::

Back to top button