কলকাতা

বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর বাড়ি ঘিরল পুলিশ

আশঙ্কাই সত্যি হল। কলকাতা পুরভোটে হিংসা, ছাপ্পা ভোট, বুথ জ্যাম, বিরোধী প্রার্থী ও তাদের এজেন্টদের মারধরের ঘটনা ঘটল। হাইকোর্ট কলকাতা পুলিশের উপর আস্থা রাখলেও লালবাজারকেই নিশানা করছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। এ দিনের ভোট নিয়ে মমতা সরকার, কলকাতা পুলিশ, রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে আক্রমণ করেছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।

কী বলেছেন শুভেন্দু?

পুরভোটে অশান্তির জন্য কলকাতার পুলিশ কমিশনার সৌমেন মিত্র, রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দত্তকে দায়ী করেছেন নন্দীগ্রামের বিধায়ক। এমএলএ হস্টেলে বিজেপির প্রায় ১০-১২ জন বিধায়ককে আটকে রাখারও অভিযোগ তুলেছেন তিনি।

শুভেন্দুর দাবি, ‘মমতা ব্যানার্জীর লাজ-লজ্জা ধ্বংস হয়ে গিয়েছে। আমাদের কাছে এক হাজার প্রমাণ রয়েছে। এইসব করেছেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দত্ত ও কলকাতার পুলিশ কমিশনার সৌমেন মিত্র।’ প্রতিবাদে বিকেল পাঁচটায় নির্বাচন কমিশনারের দফতরে তিনি নিজে যাবেন বলে জানিয়েছেন। তাঁর হুঁশিয়ারি, ‘ঢুকতে না দিলে রাস্তায় বলে বিক্ষোভ হবে।’

আরও পড়ুন: ‘ভালোভাবেই ভোট হচ্ছে’: মমতা

তৃণমূল পুরভোটে ১৪৪টি ওয়ার্ডেই জিততে মরিয়া বলে দাবি শুভেন্দু অধিকারীর। তিনি বলেছেন, ‘ওদের ১৪৪টাই চাই। এতো উদগ্র খিদা আমি দেখিনি। দিনহাটায় তৃণমূলের প্রার্থী জিতেছিলেন ৮৭ শতাংশ ভোটে। এবার পুরভোটের ওদের কাউন্সিলররা ৯০ শতাংশ ভোট পেয়ে টেক্কা দিতে চাইছেন। মনে রাখতে হবে পৃখথিবীটা গোল।’

এরমধ্যেই শুভেন্দু অধিকারীর বাড়ি ঘেরার অভিযোগ বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেটের বিরুদ্ধে। বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে বাড়িতে শুভেন্দুর বৈঠকের সময় এই ঘেরাওয়ের ঘটনা ঘটে বলে দাবি বিজেপি নেতাদের। পুলিশের সঙ্গে বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদায়েরর বাকযুদ্ধও হয়।

এদিকে এমএলএ হোস্টলে আটকে পড়া ভিন জেলার ৮ বিজেপি বিধায়করা রাস্তায় বসেই বিক্ষোভ দেখান।

 

 

সুত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা

আরও পড়ুন ::

Back to top button