আন্তর্জাতিক

প্লেন চুরি করে আকাশে উড়াল, অতঃপর…

যুক্তরাষ্ট্রের মিসিসিপির উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় একটি শহরে প্লেন চুরি করে আকাশে উড়াল দিয়েছিলেন এক পাইলট। কিন্তু তেল ফুরিয়ে যাওয়ায় মাঠেই প্লেনটিকে অবতরণ করান অভিযুক্ত পাইলট। এর আগে প্লেনটি আকাশে ছিল টানা কয়েক ঘণ্টা। অবতরণের পরপরই পাইলটকে গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল শনিবার এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের মিসিসিপির উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় শহর তুপেলোতে একটি বিমান চুরি করে আকাশে উড়ান দেন এক পাইলট। এরপর টানা কয়েক ঘণ্টা ওই বিমান নিয়ে তিনি আকাশে অবস্থান করেন এবং বিমানটিকে ওয়ালমার্ট স্টোরে ‘ইচ্ছাকৃতভাবে বিধ্বস্ত’ করার হুমকি দেন।

তবে অভিযুক্ত ওই পাইলট পরে প্লেনটিকে নিরাপদে অবতরণ করান এবং তাকে হেফাজতে নেওয়া হয় বলে নিশ্চিত করেছেন গভর্নর টেট রিভস। টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতির সমাধান করা হয়েছে। এতে কেউ আহত হয়নি।’

এনডিটিভি বলছে, অভিযুক্ত ওই পাইলট ওয়ালমার্টের ওপরই বিমান বিধ্বস্ত করার হুমকি দেন। কিন্তু সেই হুমকি আর সত্যি হয়নি। তার আগেই ফুরিয়ে যায় প্লেনের জ্বালানি। বাধ্য হয়ে একটি মাঠে বিমান অবতরণ করাতেই হাতেনাতে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, শনিবার স্থানীয় সময় ভোর ৫টার দিকে মিসিসিপির তুপেলো বিমানবন্দর থেকে ৯ আসনের একটি প্লেন চুরি করে এক যুবক। এরপর সে গোটা শহরের ওপরে বিমান নিয়ে ঘুরপাক করতে থাকে। একপর্যায়ে ওই পাইলট ওয়ালমার্টের ওপর ইচ্ছে করে বিমান বিধ্বস্ত করার হুমকি দেন। এরপরই পুলিশ সতর্কতা জারি করে এবং ওয়ালমার্ট-সহ তুপেলোর একাধিক দোকান খালি করে দেওয়া হয়। আশপাশের বাড়ি থেকেও স্থানীয় বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়া হয়।

তবে আকাশে থাকা অবস্থায়ই ওই পাইলটের সঙ্গে সরাসরি রেডিওর মাধ্যমে যোগাযোগ করে পুলিশ। তাকে হামলা চালাতে নিষেধ করা হয়। কিন্তু নিজের জেদই ধরে রেখেছিল অভিযুক্ত ওই যুবক। তবে বাধ সাধে সঙ্গে থাকা প্লেনটিই। জ্বালানি ফুরিয়ে যাওয়ায় তাকে একটি ফাঁকা মাঠে বিমান ল্যান্ড করাতে হয়। সঙ্গে সঙ্গেই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

প্রাথমিক তদন্তে অনুমান করা হচ্ছে, ব্যক্তিগত শত্রুতার কারণেই ওই যুবক হামলা চালানোর চেষ্টা করেছিল। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধেও গাফিলতির অভিযোগ আনা হয়েছে।

আরও পড়ুন ::

Back to top button