রাজনীতিরাজ্য

মমতার মুখে কানন স্তুতি, তবে শোভনের তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন সময়ের অপেক্ষা?

Mamata Banerjee : মমতার মুখে কানন স্তুতি, তবে শোভনের তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন সময়ের অপেক্ষা? - West Bengal News 24

গত দু’ বছরে অন্তত বার দু’ য়েক তাঁর তৃণমূলে প্রত্য়াবর্তন নিয়ে চর্চা হয়েছে। কিন্তু সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তা স্তিমিতও হয়ে গিয়েছে। কিন্তু এবার তৃণমূল নেত্রীর মন্তব্য়ে তাঁর প্রিয় কাননের প্রশংসা – মুখ্য়মন্ত্রীর (Chief Minister) এই প্রশংসার পরই ফের শোভনের (Sovan Chaterjee) তৃণমূলে প্রত্য়াবর্তনের জল্পনা নিয়ে চর্চা শুরু হয়েছে। এর পিছনে একাধিক কারণও খুঁজে পাচ্ছে রাজনৈতিক মহল।

হাওড়ায় বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের (Vande Bharat Express) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জোকা-বিবাদী বাগ মেট্রো প্রকল্পের কথা বলতে গিয়ে মুখ্য়মন্ত্রী যেভাবে তাঁর একদা বিশ্বস্ত সৈনিক শোভন চট্টোপাধ্য়ায়ের (Sovan Chaterjee) প্রশংসা করেছেন , তা নজর এড়ায়নি রাজনৈতিক মহলের। কলকাতার প্রাক্তন মেয়রের প্রশংসা করে মুখ্য়মন্ত্রী বলেন , ‘এই প্রকল্পে জমি জট কাটানোর জন্য় কলকাতা পুরসভার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্য়ায় বড় ভূমিকা নিয়ছিলেন। মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের (Firhad Hakim) ভূমিকাও গুরুত্বপূর্ণ।’

সেকথা মনে করিয়ে দিলেন মমতা নিজেই। বুঝিয়ে দিলেন, তাঁর স্বপ্নের প্রকল্পের বাস্তবায়নে প্রিয় কাননের ভূমিকা ভোলেননি তিনি। প্রধানমন্ত্রীর (Prime Minister) পরে বক্তব্য় রাখতে গিয়ে জোকা- তারাতলা মেট্রো প্রকল্পের কথা তোলেন মুখ্য়মন্ত্রী (Chief Minister)। মনে করিয়ে দেন , রেলমন্ত্রী থাকাকালীন তাঁর হাত ধরেই এই প্রকল্পের উদ্বোধন হয়েছিল। মুখ্য়মন্ত্রীর কথায় এটি তাঁর স্বপ্নের প্রকল্প।

নরেন্দ্র মোদিকে উদ্দেশ্য করে মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায় বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জেনে খুশি হবেন , আমি রেলমন্ত্রী (Rail Minister) থাকাকালীন এই প্রকল্পের উদ্বোধন হয়েছিল। তৎকালীন রাষ্ট্রপতি প্রতিভা পাটিল উপস্থিত ছিলেন। আজ আমি খুব খুশি , বলা যায় এটা আমার স্বপ্নের প্রকল্প ছিল।’

চলতি বছরের জুন মাসেই বান্ধবী বৈশাখীকে (Baishakhi Banerjee) নিয়ে নবান্নে গিয়ে মুখ্য়মন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন শোভন। তার আগে গত বছর মমতার (Mamata Banerjee) কালীঘাটের বাড়িতে ভাইফোঁটা নিতে গিয়েছিলেন তিনি। সাম্প্রতিক কালে নন্দীগ্রাম (Nandigram) আন্দোলনের কৃতিত্ব নিয়ে শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari) করা মন্তব্য়ের পাল্টা মমতার হয়ে সওয়াল করতে আসরে নামেন শোভন।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন , শোভনের দলত্য়াগ এবং পার্থ চট্টোপাধ্য়ায়ের (Partha Chaterjee) গ্রেফতারির পর বেহালা অঞ্চলে তৃণমূলের কোনও প্রভাবশালী মুখ নেই। তাছাড়া পঞ্চায়েত এবং লোকসভা নির্বাচনের আগে প্রশাসক এবং রাজনীতিক শোভনের অভিজ্ঞতা তৃণমূলের কাজেই লাগবে। নারদ কেলেঙ্কারি ছাড়া শোভনের (Sovan Chaterjee) বিরুদ্ধেও বড় কোনও দুর্নীতির অভিযোগ নেই। এই পরিস্থিতিতে মমতার মুখে শোভনের প্রশংসা যথেষ্ট ইঙ্গিতবাহী বলেই মত রাজনৈতিক মহলের।

আরও পড়ুন ::

Back to top button