সম্পর্ক

‘ছেলেরা যে মেয়েকে ভালোবাসে তাকে বিয়ে করে না’, সত্যি নাকি মিথ্যা

‘ছেলেরা যে মেয়েকে ভালোবাসে তাকে বিয়ে করে না’, সত্যি নাকি মিথ্যা

এক নারীর গল্প আগে জানা যাক, একটা ম্যাজিক। প্রথম দেখাতেই প্রেমে পড়ার ঘটনা। যাকে বলে লাভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট। একবার মানুষটির দিকে তাকিয়ে, নয়নের দিকে চেয়ে নিয়েই বোঝা যায় যে এই মানুষটিকে আমার পছন্দ। আমারও ঠিক এমনই হয়েছিল। কিন্তু মানুষটি আমায় শুধু ব্যবহার করেছেন।

তাকে ভালোবাসার কারণ:
আসলে ও আমায় রোমান্টিক ঢঙে প্রোপোজ করেছিল। আমি সেই প্রেম নিবেদনে গলে যাই। তাই ওর প্রতারণা আমি ধরতে পারিনি। বিশেষত, সম্পর্কের প্রথমের দিকে তো আমি কিছুই বুঝতে পারতাম না। তখন ও আমায় একবারে অন্য অনুভূতি দিয়ে এসেছে। কিছুদিন পর থেকেই বদলে গিয়েছে।

কেমন ছিল ভালোবাসার অভিজ্ঞতা:
আমাদের ভালোবাসা দারুণ এগচ্ছিল। একে অপরকে ভীষণ ভালোবাসতাম। খুব হেসেছি। এমনকি রোমান্সও করেছি চুটিয়ে। আমার মনে হয়েছিল ও বিয়ে করবে। আমায় বলেছিল ঠিক সময়ের জন্য অপেক্ষা করতে। আসলে আমিও তখন ওর কথা মেনে নিয়েছিলাম। ভাবেছিলাম, বোধহয় এখনো সম্পর্ক আসেনি বিয়ের জায়গায়। এক্ষেত্রে নিজেদের মধ্যে যে এই বিষয় নিয়ে কথাও বলতে পারি, এটাও আমার মন থেকে বেরিয়ে যায়।

আরও পড়ুন :: যে কারণে স্ত্রীর প্রতি আকর্ষণ হারায় স্বামী

​বিয়ের প্রসঙ্গ যখন এলো:
একদিন ও হঠাৎ করেই বলে যে আমায় বিয়ে করতে পারবে না। আমি এই কথাটা শোনার পর হতবাক হয়ে যাই। ও জানায়, ওর বাড়ির লোক এই বিয়েতে অনুমতি দেবে না। জাতিগত সমস্যা দেখা দিতে পারে। যদিও আমি জানি না যে কেন ওর পরিবারের লোকজন এই বিয়েকে মেনে নেয়নি। কিন্তু ও জানায় যে পরিবারকে এই কথা কথা সে জানাতে পারবে না। তাই আমাদের সঙ্গে ছাড়তে হবে।

কী মনে হয়েছিল:
আমার মনে ঘুরতে থাকে অনেক প্রশ্ন। আমার মনে প্রশ্ন আসে ও কেন আমার সঙ্গে এমনটা করল? ও কি আমায় আদৌ কোনদিন ভালোবেসেছে? যতবার এই প্রশ্নগুলি ভেবেছি, ততই আমার ভেতর থেকে বেরিয়ে এসেছে হতাশা। আমি দুর্বল হতে থেকেছি। আমার নিজের সম্পর্কে খারাপ অনুভব হয়েছে। আমি ওর থেকে দূরে চলে যাই। এমনকি নিজের চাকরি বদলে অন্য শহরে চলে আসি।

এরপর নতুন জীবন শুরু করতে চলে আসি। আমি একদিন ইনস্টাগ্রাম দেখছিলাম। হঠাৎই দেখি আমার প্রাক্তন প্রেমিক বিয়ে করে নিয়েছেন। এমনকি বিয়ের ছবিতে আনন্দেই দেখাচ্ছে। আমি ওকে ছেড়ে অনেকদূর এগিয়ে আসার পরও এই বিষয়টা আমায় খুব দুঃখ দেয়। আমি ওর স্ত্রীর প্রোফাইলও চেক করি। ওর স্ত্রী হলেন পাঞ্জাবী। এমনকি আমার এক্স বয়ফ্রেন্ড একজন মহারাষ্ট্রের মানুষ। এবার ও আমায় বলেছিল যে ওর পরিবারে অন্য জাতির মেয়েকে মেনে নেবে না। কিন্তু এখন বিষয়টা অন্য দেখাচ্ছে। আর প্রশ্ন হল ও কেন আমায় মেনে নেয়নি?

এখন কী মনে হয়:
আসলে ও কখনোই চায়নি আমার সঙ্গে বিয়ে হোক। আবার আমার মনে হয় যে ছেলেরা কখনো নিজের পছন্দের মেয়েকে বিয়ে করে না।

মনোবিদরা বলছেন, ছেলেরা কখনো নিজের পছন্দের মেয়েকে বিয়ে করে না।-এই কথা কিন্তু ভুল। আসলে এমন ঘটনা ঘটতে থাকলে পৃথিবীতে বিয়ে বলে কিছুই থাকত না। আপনাকে বুঝতে হবে যে মানুষটি কখনো আপনাকে ভালোবাসেনি। সে আপনাকে ভালোবাসলে এই ঘটনা কখনো ঘটতে পারত না। সে একবার অন্তত নিজের পরিবারকে কথাটা জানাতে পারত। তাই নিজেকে দোষরোপ করবেন না।

সূত্র: ইন্ডিয়া টাইমস এবং এই সময়

আরও পড়ুন ::

Back to top button