নিজের জিহ্বা সম্পর্কে কতটুকু জানেন? জেনে নিন ৮টি তথ্য


নিজের জিহ্বা সম্পর্কে কতটুকু জানেন? জেনে নিন ৮টি তথ্য

এটি ছাড়া আপনি কথা বলতে পারবেন না, শ্বাস নিতে পারবেন না, এমনকি কথাও বলতে পারবেন না। দেহের এত জরুরি একটি অঙ্গ জিহ্বা। এর সম্পর্কে কতটুকুই বা জানেন আপনি। এখানে জেনে নিন জিহ্বা সম্পর্কে ৮টি চমকপ্রদ তথ্য।

১. মানুষের জিহ্বার গড় দৈর্ঘ্য ১০ সেন্টিমিটার। এই মাপটি একেবারে জিহ্বার ডগা থেকে গলার শেষ সীমা পর্যন্ত নেওয়া হয়েছে। বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা জিহ্বার অধিকারী নিক স্টোবেরি। তার জিহ্বার দৈর্ঘ্য ১০.১ সেন্টিমিটার। বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, নিকের ঠোঁটের নিচে জিহ্বাটি অস্বাভাবিকভাবে নেমে আসে।

২. জিহ্বায় গড়ে ২ হাজার থেকে ১০ হাজারেরও বেশি সংখ্যক স্বাদগ্রন্থি থাকে। এগুলোকে বলা হয় ‘সুপারটেস্টারস’। প্রতি ১০-১৪ দিন অন্তর অন্তর আপনার স্বাদগ্রন্থি মরে যায় এবং নতুন গ্রন্থি গজিয়ে ওঠে।

৩. নিজেদের জিহ্বার এই স্বাদগ্রন্থিগুলো আমরা দেখতে পারি না। এগুলোকে খালি চোখে দেখা যায় না।

বউয়ের গয়না বেচে ব্যবসা শুরু, এখন ৯০০ কোটির মালিক!

৪. জিহ্বাকে ঘোরানো এবং প্যাঁচানোর ক্ষেত্রে জিনের কোনো প্রভাব নেই। সময়ের সঙ্গে মানুষ জিহ্বাকে ব্যবহারে অভ্যস্ত হয়ে ওঠে। এটা মানুষের সহজাত প্রবণতা থেকে তৈরি হয় বলে জানান ইউনিভার্সিটি অব ডেলাওয়ার এর ডিপার্টমেন্ট অব বায়োলজিক্যাল সায়েন্সেস এর অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর এইচ ম্যাকডোনাল্ড।


৫. জিহ্বা বিস্ময়করভাবে শুধু স্থিতিস্থাপকই নয়, এটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ কিছু কাজে নিয়মিত ব্যবহৃত হয়। কথা বলা, খাওয়া ইত্যাদি কাজ জিহ্বা ছাড়া সম্ভব নয়। জিহ্বা মূলত দেহের শক্তিশালী কোনো পেশি নয়। এটি মাঝারি শক্তির কাজ করতে পারে।

৬. জিহ্বার রং দেখে চিকিৎসক আপনার স্বাস্থ্যগত কিছু তথ্য বলতে পারেন। স্বাস্থ্যকর জিহ্বায় দারুণ গোলাপী আভা থাকবে। তবে রং মেশানো কিছু খাওয়ার পর জিহ্বা রঙিন হয়ে উঠলে ভয়ের কিছু নেই। কিছু অ্যালার্জি এবং সংক্রমণের কারণে জিহ্বা অতিরিক্ত লালচে হয়ে ওঠতে পারে। জিহ্বা এবং মুখের অভ্যন্তরে সাদাটে দাগ ছত্রাক সংক্রমণের কারণে হতে পারে। এ জন্য চিকিৎসক অ্যান্টিফাঙ্গাল ওষুধ দিয়ে থাকেন। জিহ্বা স্বাভাবিক অবস্থায় কিছুটা খসখসে হবে। কিন্তু এর চেয়ে বেশি মসৃণ হলে বুঝতে হবে আপনার দেহে আয়রন, ফোলিক এসিড এবং ভিটামিন বি১২ এর অভাব ঘটেছে। এটি স্বাস্থ্যজনিত কোনো সমস্যা না হলেও তা খাবারের সমস্যা বা ব্যাকটেরিয়াজনিত সংক্রমণের কারণে হতে পারে।

এটিএমের পিন নম্বর সাধারণত কেন চার সংখ্যার হয়?

৭. সম্প্রতি ইউনিভার্সিটি অব পেনসিলভেনিয়ার এক দল গবেষক জানান, স্বাভাবিকের চেয়ে মোটা জিহ্বা যাদের তাদের ঘুমের অভাব থাকতে পারে বলে মনে করেন চিকিৎসকরা। যাদের ঘুমের ব্যাঘাত ঘটে তাদের জিহ্বা স্বাভাবিকের চেয়ে মোটা হতে দেখা গেছে।

৮. আগে ধারণা করা হতো, ভিন্ন ভিন্ন স্বাদ গ্রহণের জন্য ভিন্ন ভিন্ন গ্রন্থি রয়েছে। কিন্তু জিহ্বার গোটা অংশেই সব ধরনের স্বাদ পাওয়া যায়।

আপনার মন্তব্য

Recommended For You