অপরাধ

বন্ধুদের সঙ্গে একই স্কুলে পড়তে চাওয়ায় মেয়েকে হত্যা

বন্ধুদের সঙ্গে একই স্কুলে পড়তে চাওয়ায় নিজের কিশোরী কন্যাকে হত্যা করেছেন এক বাবা। এমন ঘটনা ঘটেছে সুদানে। এরপরই দেশটিতে নারী ও কিশোরীর সুরক্ষার প্রশ্নটি নতুন করে সামনে এসেছে।

স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, সামাহ আল-হাদি নামের ওই কিশোরীকে হত্যার ঘটনায় মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু করেছে খার্তুম পুলিশ। তবে সামাহ’র বাবাকে এখনও গ্রেপ্তার করা হয়নি।

আরও পড়ুন :একটি চিঠিই বলে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রে এশীয়বিদ্বেষ কতটা বেড়েছে

খবরে বলা হয়েছে, বন্ধুদের সঙ্গে একই স্কুলে পড়তে ট্রান্সফার করতে চান, এমন অনুরোধ করার পর ১৩ বছরের ওই কিশোরীকে তিনবার গুলি করে তার বাবা। এতে তার মৃত্যু হয়।

সামাহ’কে তার বাবা বাড়িতে আটকে রেখে নির্যাতন করেন। পরে এক বন্ধুর সঙ্গে দেখা করার পর শুক্রবার সামাহ’র পা ভেঙে দেন তার বাবা। এরপর তাকে গুলি করে হত্যা করেন তিনি।

পরে ময়নাতদন্ত ছাড়াই সামাহ’র মৃতদেহ দাফন করা হয় বলে খবরে জানা গেছে। সামাহ’র প্রতিবেশীরা জানিয়েছে, নিজের সন্তানদের শারীরিক নির্যাতন করতেন ওই ব্যক্তি।

এমন ঘটনা সামনে আসার পর ক্ষোভে ফেটে পড়েছে সুদানের মানুষ। সামাহ’র বাবাকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছে মাই ফাদার কিল্ড মি হ্যাশট্যাগও চালু করেছে দেশটির সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা।

এদিকে সামাহ’র বাবাকে কেন এখনও গ্রেপ্তার করা হয়নি তা স্পষ্ট নয়। এ ঘটনায় সঠিক তদন্তের জন্য অনলাইনে অনেকেই আবেদনও করেছেন।

আরও পড়ুন ::

Back to top button