জাতীয়

করোনায় ৫ নয়, ৪০ লাখ মৃত্যু, ডব্লিউএইচওর প্রতিবেদনে আপত্তি

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ছোট এবং অল্প জনসংখ্যার দেশে যেভাবে করোনায় মৃত্যুর হিসাব করা হয়, সেই একই গাণিতিক মডেল ভারতের মতো একটি বড় এবং বিপুল জনসংখ্যার দেশে ব্যবহার করা উচিত নয়।

‘বিশ্বব্যাপী করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা সর্বজনীন করার জন্য ডব্লিউএইচওর প্রচেষ্টা থামিয়ে দিচ্ছে ভারত’- এই শিরোনামে শনিবার (১৬ এপ্রিল) মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনের প্রতিক্রিয়ায় বিবৃতি দেয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। রোববার (১৭ এপ্রিল) এ খবর জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস।

প্রতিবেদন অনুসারে, ডব্লিউএইচও ২০২১ সালের শেষ নাগাদ করোনাভাইরাস সম্পর্কিত প্রায় দেড় কোটি মানুষের মৃত্যুর তথ্য দিয়েছে, যা দেশগুলোর সরকারি পরিসংখ্যানের দ্বিগুণেরও বেশি। আর সরকারের দেওয়া পরিসংখ্যানের আট গুণ।

সরকারের হিসাবে, দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনায় ৫ লাখ ২০ হাজারের মতো মানুষের মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) এক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, এ সংখ্যা প্রায় ৪০ লাখ।

এদিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে। তবে আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা।

পরিসংখ্যানবিষয়ক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্য বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন দুই হাজার ৬৯ জন। একই সময়ে নতুন করে সাত লাখ ৫৯ হাজার ১৫১ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন।

শনিবার (১৬ এপ্রিল) বিশ্বে দুই হাজার ২৩৯ জনের মৃত্যু খবর পাওয়া যায়। আর করোনা শনাক্ত হয় ছয় লাখ ৯৮ হাজার ৬৩৭ জন।

এ নিয়ে বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬২ লাখ ২১ হাজার ৯৫৭ জনে। এ ছাড়া এখন পর্যন্ত ৫০ কোটি ৪৩ লাখ ৮৪ হাজার ৯৪৯ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪৫ কোটি ৫০ লাখ ৫৬ হাজার ১৮৭ জন।

 

আরও পড়ুন ::

Back to top button