মালদা

মালদা বিস্ফোরণ কাণ্ডে গ্রেফতার ৪

মালদা বোমা বিস্ফোরণ মামলায়, গ্রেফতার চার জন। রবিবার বিকেলে বোমা বিস্ফোরণে পাঁচ শিশু গুরুতর আহত হয়েছে। তৃণমূল যুব নেতা শরীফ শেখ বোমাগুলি মজুদ রেখেছিল বলে অভিযোগ।

বিস্ফোরণ কাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে তাঁদের গ্রেফতার করা হয়। ধৃতদের নাম ইলিয়াস আলি, মাসিদুল হক, জাসমাত মিঞা ও ইমাজুদ্দিন মিঞা।

মূল অভিযুক্ত এখনও অধরা।

উল্লেখ্য, রবিবার মালদার কালিয়াচকের গোলাপগঞ্জ এলাকার গোপালনগর গ্রামে খেলার সময় বোমা বিস্ফোরণে পাঁচ শিশু আহত হয়। সবাই চিকিত্‍সাধীন। জখম শিশুরা হল বিক্রম সাহা(৮), শুভজিত্‍ সাহা (৯), মিঠুন সাহা (১০), সুবল সাহা (৬) ও আব্দুল রেহান (৪)। এদিন গোপালনগর এলাকায় বাড়ির পাশে একটি মাঠে খেলা করছিল কয়েকজন শিশু। সেইসময় বল ভেবে বোমা নিয়ে খেলতে শুরু করে দেয় তারা। আর এতেই হঠাত্‍ ফেটে যায় ওই বোমাটি।

স্থানীয়দের একাংশের দাবী, পাশেই সীমান্ত এলাকা থাকায় তৃণমূলের যুব নেতা শরীফ শেখের বাংলাদেশের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে। সেখান থেকেই হয়তো বোমাগুলি আমদানি করা হয়েছে।

বিজেপি এই ইস্যুতে সোচ্চার হয়েছে। ইংরেজবাজারের বিজেপি বিধায়ক শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী বলেন, ‘তৃণমূল যুব নেতারা এর সঙ্গে যুক্ত থাকলেও তাদের লুকিয়ে রাখা হচ্ছে। কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হলেও মূল অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না।

সোমবার বিকেলে জেলা পুলিশ সুপার অমিতাভ মাইতি এবং তৃণমূল কংগ্রেস মালদা জেলা সভাপতি আবদুর রহিম বক্সী বিস্ফোরণস্থল পরিদর্শন করেন। আহত পাঁচ শিশুর পরিবারের সঙ্গেও কথা বলেন তিনি। প্রকৃত দোষীদের শাস্তি হবে বলে আশ্বস্ত করা হয়েছে আহতদের পরিবারকে।

ওই দিন ঘটনাস্থলে যায় বম্ব স্কোয়াড ও ফরেনসিক দল। ফরেনসিক দল নমুনা সংগ্রহ করেছে। সেগুলো ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। রবিবার ঘটনাস্থল থেকে প্রায় ৩৫টি বোমা উদ্ধার করা হয়েছে।

সোমবার সকালে বোমা নিষ্ক্রিয়করণ স্কোয়াড, মেডিক্যাল টিম, ফায়ার ব্রিগেড ও পুলিশ আধিকারিকদের উপস্থিতিতে সেগুলো নিষ্ক্রিয় করা হয়। এদিকে চারজনকে আটক করা হলেও মূল অভিযুক্ত এখনও পলাতক। এতে গ্রামবাসীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

বিজেপির দক্ষিণ মালদার সাংগঠনিক জেলা সভাপতি পার্থসারথি ঘোষ বলেন, ‘গ্রামবাসীরা যা বলছেন তাতে প্রমাণিত হয় দুষ্কৃতীরা তৃণমূলের সঙ্গে যুক্ত। এটি একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। সিবিআই ঘটনার তদন্ত করুক।’

তৃণমূলের গোলাপগঞ্জ এলাকার সভাপতি তোবারক হুসেন বলেন, ‘গোপালনগর গ্রামে বিস্ফোরণে বহু শিশু আহত হয়েছে। বোমা মজুতকারীদের গ্রেফতার করে শাস্তি দেওয়া হবে। এলাকায় যাতে শান্তি বজায় থাকে সেদিকে প্রশাসনকে নজর দিতে হবে।”

গোলাপগঞ্জ ফাঁড়ির ওসি শ্যামসুন্দর সাহা জানান, বিস্ফোরণে জড়িত সন্দেহে চারজনকে আটক করা হয়েছে। হতাহতরা সবাই গোপালনগর গ্রামের বাসিন্দা। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

 

আরও পড়ুন ::

Back to top button