বলিউড

যে কারণে বলিউড ছাড়তে বাধ্য হয়েছিলেন ভাগ্যশ্রী

এক ছবিতেই তার প্রেমে পড়ে গিয়েছিল আসমুদ্রহিমাচল। ‘ম্যায়নে পেয়ার কিয়া’র নিষ্পাপ কিশোরী ‘সুমন’ নিজেই হয়ে গিয়েছিলেন প্রেমের প্রতীক। আজও লোকের মুখে মুখে ফেরে সে ছবির গান। থাকেননি শুধু ভাগ্যশ্রী নিজে। বিয়ে করে বলিউডকে আচমকাই বিদায় জানান এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী। যার কারণ খুঁজতে আজও আলোচনার শেষ নেই। সাম্প্রতিক এক সাক্ষাৎকারে তার জন্য শুধু স্বামী হিমালয় নন, শ্বশুরবাড়ির সকলকেও দায়ী করেছেন ভাগ্যশ্রী নিজেই।

প্রথম থেকেই শোনা যায়, অন্য অভিনেতাদের সঙ্গে ভাগ্যশ্রী প্রেমের দৃশ্যে অভিনয় করুন, এতে ভয়ানক আপত্তি ছিল তার স্বামীর। প্রযোজক হিমালয় ফরমান জারি করেন, একমাত্র তার সঙ্গেই ছবি করতে পারবেন ভাগ্যশ্রী। হাতেগোনা সেই কয়েকটি একেবারেই মুখ থুবড়ে পড়ে বক্স অফিসে। খ্যাতির শিখরে থাকা কেরিয়ার তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে নায়িকার।

আরও পড়ুন :: ওয়েব সিরিজে সাহসী দৃশ্যে অভিনয় করে পুরুষদের রাতের ঘুম কেড়েছেন এই ৫ অভিনেত্রী

কিন্তু শ্বশুরবাড়ির বাকিরা, কেরিয়ার নষ্ট হওয়ার জন্য তাদের কেন দায়ী করলেন অভিনেত্রী?

সাক্ষাৎকারে ভাগ্যশ্রী জানিয়েছেন, তার শ্বশুরবাড়ির কেউই তার পেশাকে বুঝতে চাইতেন না। অভিনেত্রীর কথায়, ‘‘বাড়ির বাইরে বলিউডে আমার যে একটা জীবন আছে, তা মানতে বা গুরুত্ব দিতে চাইতেন না কেউই। অথচ যে মুহূর্তে বাড়িতে পা রাখতাম, গৃহবধূর যাবতীয় দায়িত্বপালনে লেগে পড়তে হত। দু’দিক সামাল দেয়া ভীষণ কঠিন হয়ে গিয়েছিল।’’

বহু বছর বাদে, বেশি বয়সে আবার ছোটপর্দায় ফিরেছেন ভাগ্যশ্রী। সেখানে এখন তিনি নিয়মিত মুখ। অল্পস্বল্প কাজ করছেন বড় পর্দাতেও। তবু কম বয়সে যে উজ্জ্বল কেরিয়ার তার হতে পারত, তা হেলায় নষ্ট হওয়ার আফশোস তার আজও যায়নি। তবে মায়ের দেখাদেখি ছেলে অভিমন্যু ও মেয়ে অবন্তিকা বেছে নিয়েছেন অভিনয়ের দুনিয়াকেই।

আরও পড়ুন ::

Back to top button