জানা-অজানা

জন্মদিন পালন মানেই হ্যাপি বার্থডে টু ইউ গান – কিন্তু কখনো ভেবেছেন এই গানের বাকি লাইন গুলি কি কি?

ওয়েস্ট বেঙ্গল নিউজ ২৪

জন্মদিন পালন মানেই হ্যাপি বার্থডে টু ইউ গান - কিন্তু কখনো ভেবেছেন এই গানের বাকি লাইন গুলি কি কি?

তবে সাধারণ ভাবে জন্মদিনে এই গানের দু’কলিই গেয়ে থাকি আমরা। সাধারণত যে মানুষটার জন্মদিন, তাকে স্পেশাল ফিল করানোর জন্যই তার আপনজনেরা এই গান গেয়ে থাকে। গানটি হ্যাপি বার্থডে টু ইউ (Happy Birthday To You)।

গানটি মিশে থাকে আমাদের মননে। অথচ আমরা কি কখনও ভেবে দেখেছি যে, গানটার বিষয়ে? এই গানটা কি আদৌ মাত্র দুই লাইনেরই? আদতে গানটা দুই লাইনেই শেষ হয় না। গানটিতে রয়েছে আরও বেশ কিছু লাইন। যেগুলি বেশির ভাগ মানুষই জানে না। ফলে জন্মদিনে শুধুমাত্র প্রথম অংশটুকুই গাওয়া হয়। তাহলে আজ শিখে নেওয়া যাক গোটা গানটাই।

হ্যাপি বার্থডে টু ইউ

হ্যাপি বার্থডে টু ইউ।

হ্যাপি বার্থডে ডিয়ার (নাম ),

হ্যাপি বার্থডে টু ইউ।

ফ্রম গুড ফ্রেন্ডস অ্যান্ড ট্রু,

ফ্রম ওল্ড ফ্রেন্ডস অ্যান্ড নিউ,

মে গুড লাক গো উইথ ইউ,

অ্যান্ড হ্যাপিনেস টু।

বাঙালি পরিবারে জন্মদিন মানেই পায়েস, রকমারি সুস্বাদু খাবার এবং নানা উপহার। তবে আজকাল পায়েসের পাশাপাশি জায়গা করে নিয়েছে কেকও। ফলে যাঁর জন্মদিন, তাঁর পছন্দের খানাপিনার সঙ্গে থাকে জন্মদিনের বিশেষ কেকও। ফলে মোমবাতি নিভিয়ে কেক কাটা হয়। সেই সঙ্গে চারিদিক মুখরিত হয় জন্মদিনের গানে। জন্মদিনের গান মানেই ‘হ্যাপি বার্থডে টু ইউ’।

আরও পড়ুন :: বাড়িতে রয়েছে উইন্ড চাইম, চিনা বস্তু হলেও এর প্রাধান্য অনেক – দেখুন কি এই উইন্ড চাইম

ইংরাজি এই গান গেয়েই দেশ-বিদেশ সর্বত্র জন্মদিন উদযাপন করা হয়। এমনকী ইংরাজি ভাষায় জন্মদিনের জনপ্রিয় এই গান ১৯৯৮ সালে স্থান পেয়েছে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডেও। এমনকী ১৮টি ভাষাতেও অনুবাদ করা হয়েছে জন্মদিনের গানটি। এছাড়া বহু ছবিতেও তা ব্যবহৃত হয়েছে।

তবে সাধারণ ভাবে জন্মদিনে এই গানের দু’কলিই গেয়ে থাকি আমরা। সাধারণত যে মানুষটার জন্মদিন, তাকে স্পেশাল ফিল করানোর জন্যই তার আপনজনেরা এই গান গেয়ে থাকে। জন্মদিনের কেক কাটার সময় তাঁরা হাততালি দিয়ে সমস্বরে গেয়ে ওঠেন, ‘হ্যাপি বার্থডে টু ইউ, হ্যাপি বার্থডে টু ইউ। হ্যাপি বার্থডে ডিয়ার (নাম), হ্যাপি বার্থডে টু ইউ।’ এই গানটাই যেন আমাদের ছোট থেকে বড় হয়ে ওঠার সঙ্গী হয়ে ওঠে।

আরও পড়ুন ::

Back to top button