সুশান্তের অ্যাকাউন্ট থেকে আর্থিক কারচুপির অভিযোগ দায়ের ইডি’র


সুশান্তের অ্যাকাউন্ট থেকে আর্থিক কারচুপির অভিযোগ দায়ের ইডি’র

ছেলের মৃত্যুর জন্য বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীকেই দায়ী করছেন সুশান্ত সিং রাজপুতের বাবা কে কে সিং। এমনকী মঙ্গলবার পাটনার রাজেন্দ্রনগর থানায় রিয়া ও তাঁর পরিবারের বেশ কয়েকজন সদস্যের বিরুদ্ধে এফআইআরও দায়ের করেন তিনি। সুশান্তের বাবার একাধিক অভিযোগের মধ্যে অন্যতম ছিল, প্রয়াত অভিনেতার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে ১৫ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন রিয়া।

সেই অভিযোগের বিরুদ্ধে তদন্ত করতে নেমে শুক্রবার আর্থিক তছরুপের অভিযোগ দায়ের করল খোদ এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ED)। এরই মধ্যে আবার বিস্ফোরক দাবি করে বসলেন সুশান্তের মুম্বইয়ের বন্ধু সিদ্ধান্ত পিথানি। তাঁর অভিযোগ, সুশান্তের পরিবার নাকি তাঁকে রিয়ার বিরুদ্ধে কথা বলতে বাধ্য করছে!

[ আরও পড়ুন : এফআইআর নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন রিয়া (ভিডিও) ]

১৪ জুন দিনের ক্ষতটা সুশান্তের (Sushant Singh Rajput) অনুরাগীদের কাছে আজও দগদগে। অভিনেতা বিদায় নিয়েছেন। কিন্তু পিছনে ফেলে গিয়েছেন হাজারো প্রশ্ন। আর যতদিন যাচ্ছে, ততই নতুন নতুন মোড় নিচ্ছ তাঁর মৃত্যু তদন্ত। রহস্যের উপঘাটন করতে গিয়ে ধীরে ধীরে জটিলতা যেন বেড়েই চলেছে। এবার সুশান্তের অ্যাকাউন্ট থেকে ‘সন্দেহজনক লেনদেনে’র জন্য আর্থিক কারচুরির অভিযোগ দায়ের করল ইডি।


এ বিষয়ে বিহার পুলিশের থেকে তথ্য চাওয়া হয়েছিল। গতকালই বিহার পুলিশের একটি দল কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাংকের বান্দ্রা শাখায় যায় সুশান্তের অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করতে। তারপরই এদিন দায়ের হল লিখিত অভিযোগ। এদিকে, ইতিমধ্যেই রিয়া সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, সুশান্তের অ্যাকাউন্ট থেকে তিনি কোনও অর্থ নেননি।

[ আরও পড়ুন :  সুশান্তের সঙ্গে লিভ ইনে ছিলেন রিয়া! ]

সুশান্তের মৃত্যুর পর থেকেই প্রকট হয়ে ওঠে বলিউডের স্বজনপোষক তত্ত্ব। একের পর এক পরিচালক, প্রযোজককে জেরা করতে থাকে মুম্বই পুলিশ। কিন্তু সম্প্রতি সুশান্তের বাবা ছেলের মৃত্যুর জন্য রিয়াকেই কাঠগড়ায় তোলেন। অভিযোগ, ছেলেকে পাগলা গারদে পাঠানোর চেষ্টা করছিলেন রিয়া। এমনকী সুশান্তের দিদির দাবি, অভিনেতার উপর কালা জাদু করছিলেন রিয়া। এই প্রসঙ্গে রিয়ার উত্তর, তিনি সুশান্তকে ভালবাসতেন। তাই এ সবের প্রশ্নই ওঠে না।

এরই মধ্যে আবার সুশান্তের বন্ধু সিদ্ধান্ত জানাচ্ছেন, তাঁকে ফোন করে রিয়ার বিরুদ্ধে কথা বলতে জোর করছে সুশান্তের পরিবার-পরিজনরা। তিনি বলেন, “গত ২২ জুলাই অচেনা নম্বর থেকে কনফারেন্স কল আসে। সুশান্তের পরিবারের তরফে ওম সিং এবং মীতু সিং ছিলেন। আরও কেউ ছিল। ওঁরা আমাকে রিয়ার বিষয়ে নানা প্রশ্ন করছিলেন। আমাকে রিয়ার বিরুদ্ধে বয়ান দিতে জোর করা হচ্ছে। এমনকী আমি যে বিষয়ে জানি না, সেটাও বলতে বলা হচ্ছে।”

[ আরও পড়ুন :  সুশান্তের আত্মহত্যার কারণ তদন্ত করবে না সিবিআই ]

এদিকে, সুশান্ত মৃত্যু তদন্তভার সিবিআইকে দেওয়া নিয়েও ডামাডোল অব্যাহত। মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক যেখানে সাফ জানিয়ে দিয়েছে, মুম্বই পুলিশই ঘটনার তদন্ত করবে, সেখানে বিহারের উপ-মুখমন্ত্রী সুশীল কুমার মোদি বলছেন, বিজেপি চায় তদন্তের ভার দেওয়া হোক সিবিআইকে। তাঁর কথায়, “সুশান্ত মৃত্যু তদন্তের বিহার পুলিশের কাজে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে মুম্বই পুলিশ। বিজেপির মনে করছে, সিবিআইকেই এর দায়িত্ব দেওয়া উচিত।”

সুত্র: সংবাদ প্রতিদিন

 

Recommended For You