জাতীয়

দিল্লির বিক্ষোভে আরও এক কৃষকের আত্মহত্যা

দিল্লির বিক্ষোভে আরও এক কৃষকের আত্মহত্যা - West Bengal News 24

আবারও এক কৃষক আত্মহত্যা করেছেন। কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে দিল্লির সিঙ্ঘু সীমান্তে বিক্ষোভরত এক কৃষক বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন। হরিয়ানা পুলিশের পক্ষ থেকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করা হয়েছে।

৪০ বছর বয়সী ওই কৃষক বিক্ষোভে অংশ নিয়েছিলেন। স্থানীয় সময় শনিবার অমরিন্দর সিং নামের ওই কৃষক আত্মহত্যার পথ বেছে নেন। তিনি পাঞ্জাবের ফতেহগড়ের সাহিব জেলার বাসিন্দা।

শনিবার রাতে তিনি বিষ খাওয়ার পর সঙ্গে সঙ্গেই তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। হাসপাতালেই তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ কর্মকর্তা রবি কুমার।

এদিকে কেন্দ্র সরকারের সঙ্গে ৮ দফায় বৈঠক হলেও এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে চূড়ান্ত কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। কেন্দ্রীয় কৃষক নেতাদের বৈঠকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, কোনও পরিস্থিতিতেই কৃষি আইন বাতিল করা হবে না। কিন্তু এ বিষয়ে একমত নয় কেন্দ্র।

আর সরকারের এই বার্তা স্বাভাবিকভাবেই কৃষক নেতাদের পছন্দ হয়নি। শুক্রবার দুপুর ২টা ৪৫ মিনিটে কেন্দ্রের সঙ্গে কৃষক নেতাদের বৈঠক শুরু হয়। দু’পক্ষ বৈঠকের শুরু থেকেই নিজেদের অবস্থানে অনড় ছিল।

আরও পড়ুন: ‘করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে এই পথ বেছে নিলাম’

একদিকে কেন্দ্র যেমন জানিয়েছে যে কৃষি আইন কোনভাবেই বাতিল করা যাবে না, তেমনই কৃষক নেতারাও এই তিনটি বিতর্কিত আইনের বিপক্ষে বক্তব্য রেখে তা বাতিলের দাবি জানাতে থাকেন। সূত্রের খবর অনুযায়ী, ওই বৈঠকে কেন্দ্র জানিয়েছে যে, পুরো বিষয়ের নিষ্পত্তি করার জন্য সু্প্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হবে।

যদি সুপ্রিম কোর্ট জানায়, এই আইন অবৈধ ও কৃষক স্বার্থ বিরোধী তবে কেন্দ্র পিছিয়ে আসবে এবং তা বাতিল করে দেবে। কিন্তু যদি সুপ্রিম কোর্টের রায় কৃষকদের বিপক্ষে যায় তবে কৃষকদের নিজেদের বিক্ষোভ থেকে সরে এসে আন্দোলন তুলে নিতে হবে।

তবে এই প্রক্রিয়ায় হাঁটতে নারাজ কৃষকরা। তাদের দাবি আইনী পথে গেলে তা বেশ সময় সাপেক্ষ ব্যাপার হবে। কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর কৃষকদের জানিয়েছেন, এই কৃষি আইন পুরো দেশের জন্য তৈরি করা হয়েছে। কোনও নির্দিষ্ট রাজ্যের বিরোধিতায় তা তুলে নেওয়া হতে পারে না।

পাঞ্জাব-হরিয়ানা ছাড়া বাকি সব রাজ্যের কৃষকরাই এই আইনকে সমর্থন করছেন। তাই তাদেরও উচিত বিক্ষোভ থেকে সরে আসা।

আরও পড়ুন ::

Back to top button