ঝাড়গ্রাম

পড়ুয়াদের রসনাতৃপ্তিতে ৫০ টাকায় ফ্রায়েড রাইস-চিলি চিকেন!

স্বপ্নীল মজুমদার

ঝাড়গ্রাম: ছাত্রছাত্রীদের রসনাতৃপ্তিতে ঝাড়গ্রাম রাজ কলেজের অভিনব আয়োজন! সোমবার ১৮ এপ্রিল থেকে চালু হ‌ল সরকারি ওই কলেজের ক্যান্টিন।

২০২০ সালের গোড়ায় করোনা কালে রাজ কলেজের ক্যান্টিন বন্ধ হয়ে যায়। ক্যান্টিন চালু না থাকায় সমস্যায় পড়ছিলেন ছাত্রছাত্রীরা। বিশেষত যাঁরা দূর থেকে আসেন। কলেজের আশেপাশের চত্বরে সুলভ দরে খাবার দোকানের সংখ্যাও হাতেগোনা। পড়ুয়াদের কথা ভেবে অধ্যক্ষ ড. দেবনারায়ণ রায়ের উদ্যেগে নতুন করে ক্যান্টিন চালু হল।

টেন্ডার ডেকে সর্বনিম্ন দরপ্রদানকারী ‘আমি সেই মেয়ে’ নামে একটি মহিলা গোষ্ঠীকে ক্যান্টিন পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এজন্য ওই মহিলা গোষ্ঠীকে ঘরের ভাড়া এবং বিদ্যুতের বিলে পুরোটাই ছাড় দিচ্ছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যে ৬টা পর্যন্ত কলেজের ক্যান্টিন খোলা থাকছে।

খুবই কম দামে বাটার টোস্ট, অমলেট, ডিম টোস্ট, মুড়ি-ঘুগনি, লুচি-আলুর দম পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়াও মাত্র ৫০ টাকায় জিরা রাইস-চিকেন কষা, ফ্রায়েড রাইস-চিলি চিকেন, পোলাও-চিকেন কষার মত নানা সুখাদ্য রয়েছে। ৪০ টাকায় রয়েছে মাছ-ভাতের আয়োজনও। চা, কফি, কোল্ড ড্রিংস, লস্যি থেকে সব ধরনের খাবার পাওয়া যাচ্ছে ক্যান্টিনে।

কলেজের অধ্যক্ষ ড. দেবনারায়ণ রায় বলেন, ‘‘স্বল্প দামে পুষ্টিকর খাবার দেওয়ার শর্তে মহিলা গোষ্ঠীকে ক্যান্টিন চালানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। ওই গোষ্ঠীর থেকে ঘরের ভাড়া ও বিদ্যুতের বিল নেওয়া হবে না।’’ আমি সেই মেয়ে-র প্রধান কর্ত্রী সুমিত্রা মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘কম লাভ রেখে ভাল খাবার দেওয়াটাই আমাদের লক্ষ্য।

প্রথম দিন থেকেই ক্যান্টিনে ছাত্রছাত্রীদের ভিড় দেখে আমরা খুবই উৎসাহিত।’’ সোমবার ক্যান্টিন পরিদর্শন করে সন্তোষপ্রকাশ করেন অধ্যক্ষ। ‘কিচেন কুইন’ সুমিত্রাদেবী বহুদিন রান্নার সঙ্গে যুক্ত। কেটারিং ও হোম ডেভিলারিও করেন।

২০১৭ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত কলকাতায় সরকারি আন্তর্জাতিক ফুড ফেস্টিভ্যাল ‘আহারে বাংলা’য় যোগ দিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন ::

Back to top button