আন্তর্জাতিক

মিলিয়ন ডলারের রোমান্স কেলেঙ্কারী, ২০ বছরের জেল

মিলিয়ন ডলারের রোমান্স কেলেঙ্কারী, ২০ বছরের জেল

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার ৩৬ বছর বয়সী পিচেস স্টারগোকে এখন ২০ বছরে জেল খাটতে হবে। তিনি প্রেম করেছিলেন হলকাস্ট থেকে বেঁচে থাকা ব্যক্তির সঙ্গে। পিচেস তার কাছ থেকে ২.৮ মিলিয়ন ডলার চুরি করেছিলেন। দোষও স্বীকার করেছেন আদালতে। অভিযোগ অনুযায়ী, পিচেস স্টারগো ডিজাইনর পোশাক, গয়না, একটি নৌকা এবং একাধিক গাড়ি কেনার জন্য ওই অর্থ ব্যবহার করেছিলেন।

তার এ বিলাসী জীবনযাপন শেষ পর্যন্ত তার জন্যে কাল হয়ে দাঁড়ালো। প্রেমের ভান তিনি করেছিলেন ৮৭ বছর বয়সী হলোকাস্ট থেকে বেঁচে যাওয়া একজনের সঙ্গে। তাকে প্রতারিত করেছিলেন। নিউইয়র্কে মার্কিন অ্যাটর্নি তাকে এ সাজা দিয়েছেন। বিচারক বলেছেন, এই আচরণ অসুস্থ – এবং দুঃখজনক। মার্কিন অ্যাটর্নি ড্যামিয়ান উইলিয়ামস এক বিবৃতিতে একথা জনান।

প্রতারণার লাখ লাখ টাকা ব্যবহার করে, স্টারগো বিলাসবহুল জীবনযাপন করে, একটি গেটেড কমিউনিটি এবং কর্ভেট থেকে একটি বাড়ি ক্রয় করেছিলেন, রিটজ-কার্লটনের মতো হোটেলে ছুটি কাটিয়েছিলেন এবং হাজার হাজার দামি পোশাক কিনেছিলেন। ফক্সনিউজ

পিচেস বেশ কয়েক বছর আগে একটি ডেটিং ওয়েবসাইটে ভুক্তভোগীর সাথে দেখা করেন, তারপর তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তাকে প্রেমের ফাঁদে ফেলেন। মোট ৬২টি চেকে তিনি সময়ে অসময়ে ওই ব্যক্তির কাছ থেকে ২.৮ মিলিয়ন ডলার নেন।

তার অ্যাকাউন্টে কোনো নিষ্পত্তির তহবিল কখনও জমা করা হয়নি, তবে তিনি বারবার শিকারের কাছ থেকে সাড়ে চার বছর ধরে আরও অর্থ দাবি করেছিলেন, যিনি $২.৮ মিলিয়নেরও বেশি মোট ৬২টি চেক লিখেছেন। স্টার্গো একজন টিডি ব্যাঙ্কের কর্মচারির ছদ্মবেশ নিয়ে এধরনের প্রতারণায় মেতে ওঠেন। প্রতারণার সময়, স্টারগো লুই ভিটন এবং হার্মিসের মতো দোকান থেকে প্রখ্যাত ডিজাইনারদের পোশাক কিনেছিলেন। একটি কর্ভেট এবং শহরতলির সহ একটি নৌকা এবং একাধিক গাড়ি কিনেছেন; এবং ব্যয়বহুল ছুটিতে গিয়েছিলেন যেখানে তিনি রিটজ-কার্লটনের মতো জায়গায় থাকতেন। পিচেসের আবেদনে সাড়া দিয়ে ওই ব্যক্তি তার সারাজীবনের সঞ্চয় এবং তার অ্যাপার্টমেন্টটি পর্যন্ত হারিয়েছেন। তবে জেল এড়াতে পিচেস ওই ব্যক্তির অর্থ ফেরতের কথাও জানিয়েছিল।

আরও পড়ুন ::

Back to top button