পুরুলিয়া

রাজ্যের বিমান মানচিত্রে জুড়তে চলেছে এক নয়া পালক, ব্রিটিশদের ফেলে যাওয়া রানওয়ে ব্যবহার করে পুরুলিয়া পেতে পারে নতুন এয়ারপোর্ট

রাজ্যের বিমান মানচিত্রে জুড়তে চলেছে এক নয়া পালক, ব্রিটিশদের ফেলে যাওয়া রানওয়ে ব্যবহার করে পুরুলিয়া পেতে পারে নতুন এয়ারপোর্ট

রাজ্যের বিমান মানচিত্রে আসতে চলেছে আরও এক বিমানবন্দর। মূল পুরুলিয়া শহর থেকে ১০ কিমির মধ্যেই রয়েছে ছররা। এখানে প্রচুর পরিমাণে ফাঁকা জমি থাকায় প্রায় ১৭০০ মিটার লম্বা ও ৩৫০ মিটার প্রস্থের বিমান বন্দর তৈরির ব্যাপারে আশাবাদী রয়েছেন প্রশাসনিক কর্তারা।

ব্রিটিশদের ফেলে যাওয়া রানওয়ে ব্যবহার করে এবার পুরুলিয়া পেতে পারে নতুন এয়ারপোর্ট। সূত্রের খবর মোতাবেক, ছররার এয়ারস্ট্রিপ ঘিরে এমনই ভাবনা চিন্তা রয়েছে রাজ্য সরকারের। আসল বিষয়টি হল, পুরুলিয়ার ছররায় একটি এয়ারস্ট্রিপ রয়েছে, এই এয়ারস্ট্রিপটি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কালে তৈরি করেছিল ব্রিটিশরা।

এখানে এয়ারপোর্ট তৈরি হলে পুরুলিয়া, বাঁকুড়াকে কেন্দ্র করে পর্যটনশিল্পের বিকাশও ব‌্যাপকভাবে হবে। মুখ‌্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ‌্যায়ও চাইছেন এরাজ্যে পর্যটনের বিকাশ। এখানে বিমানবন্দর তৈরি হলে তাতে দেশ-বিদেশের পর্যটকদের আসা-যাওয়ায় অনেক সুবিধা হবে। এই জেলা সামাজিক ও অর্থনৈতিক দিক থেকে সমৃদ্ধ হবে। বেশ কয়েকটি জেলার হাল বদলে যেতে পারে।

পুরুলিয়ার শিল্প, পর্যটনকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে এই বিমানবন্দর। ছোট, মাঝারি, বড় সব ধরনের বিমানই নামতে পারবে সেখানে। দিনকয়েক আগেই এই বিমানবন্দর তৈরির জমি পরিদর্শন করে আসেন বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ এবং রাজ‌্য প্রশাসনের কর্তারা।

রাজ‌্য সরকারের তরফে ছিলেন পরিবহণ দপ্তরের বিশেষ সচিব, পুরুলিয়ার জেলাশাসক, অতিরিক্ত জেলাশাসক-সহ অন্যান্য আধিকারিকরা। নবান্নসূত্রে খবর, ২০২৫ সালের মাঝামাঝি এই বিমানবন্দর চালুর লক্ষ‌্যমাত্রা রাখা হয়েছে। সেইমতো কাজ শুরু হয়েছে।

২০২৫ সালের মাঝামাঝি উদ্বোধন হতে পারে বিমানবন্দরটি। বিমানবন্দর তৈরির সমীক্ষার কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে।

আরও পড়ুন ::

Back to top button