টলিউড

দেহ ব্যবসাসহ একাধিক পেশায় জড়িত ছিলেন বইমেলায় গ্রেফতার হওয়া অভিনেত্রী রূপা দত্ত

Rupa Dutta : দেহ ব্যবসাসহ একাধিক পেশায় জড়িত ছিলেন বইমেলায় গ্রেফতার হওয়া অভিনেত্রী রূপা দত্ত - West Bengal News 24

কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলায় টাকা চুরির অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন অভিনেত্রী রূপা দত্ত। শনিবার (১২ মার্চ) সন্ধ্যায় আন্তর্জাতিক কলকাতা বই মেলা থেকে গ্রেফতার হন তিনি।

তবে তাকে নিয়ে এমন এই প্রথম নয়, রূপা দত্তের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে আরো বিস্ফোরক। পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপের বিরুদ্ধে ‘যৌন হেনস্থা’র মিথ্যা অভিযোগ তুলেছিলেন। সে খবর প্রকাশ্যে আসতেই তোলপাড় হয়েছিল অভিনয় জগত।

ঘটনাটা ২০২০সালের। সেসময় পায়েল ঘোষ অনুরাগ কাশ্যপের বিরুদ্ধে সেক্সুয়াল হ্যারাসমেন্টের অভিযোগ তুলেছিলেন। পায়েলের পাশে দাঁড়িয়ে সেসময় অনুরাগ কাশ্যপের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ তুলেছিলেন রূপা দত্ত। তিনি অভিযোগ করেছিলেন, অনুরাগ কাশ্যপ ফেসবুকে একাধিক আপত্তিকর মেসেজ পাঠিয়েছিলেন তাকে। তার অভিযোগ ঘিরেও সরগরম হয় অভিনয় জগত।

আরও পড়ুন :: অভিনয়ের জন্য নগ্ন হতে আপত্তি নেই : পাওলি দাম

রূপা দত্ত দাবি করেছিলেন, ফেসবুকেই অনুরাগ কাশ্যপের সঙ্গে পরিচয় হয়েছিল তার। আর তারপর অনুরাগ একাধিকবার ইঙ্গিতপূর্ণ মেসেজ করেছিলেন তাকে। ন্যাশনাল চ্যানেলে সাংবাদিক সাক্ষাৎকারে বিস্ফোরক অভিযোগ করেছিলেন রূপা দত্ত। এমনকি মহেশ ভট্টের বিরুদ্ধেও একই ধরনের অভিযোগ তুলেছিলেন তিনি। মহেশ ভট্টও নাকি তাঁকে এই ধরনের মেসেজ পাঠিয়েছিলেন ফেসবুকে, যার অন্য কিছু মানে দাঁড়াও।

যদিও পরবর্তী ক্ষেত্রে দেখা যায়, অনুরাগ কাশ্য়পের বিরুদ্ধে তোলা তার অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। দেখা যায়, অনুরাগ সফর নামে এক ব্যক্তির চ্যাট স্ক্রিন শট করে তুলে ধরেছিলেন রূপা দত্ত। সেই অনুরাগ সফর আবার আয়ারল্যান্ডের বাসিন্দা। তিনিও ফেসবুকে পোস্ট করে জানান, তাকে অনুরাগ কাশ্যপ বলে ভারতের ন্যাশনাল মিডিয়াগুলোতে দেখানো হচ্ছে। তিনি আদতে অনুরাগ কাশ্যপ নন। সে সময়ও মারাত্মকভাবে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন রূপা দত্ত। এমনকি সেসময় পুলিশি অভিযানে দেহ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকার প্রমাণও পায় রূপা দত্তের বিরুদ্ধে। শুধু এখানেই শেষ নয় পাশাপাশি একাধিক ব্যবসার সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন রূপা অভিনেত্রী।

শনিবার সন্ধ্যায় রূপা দত্তকে কলকাতা বইমেলা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার ব্যাগ থেকে শনিবার প্রায় ৭৫ হাজার টাকা উদ্ধার হয়েছে। এই ঘটনায় পুলিশও খানিকটা হতভম্ব। আসল পরিচয় জেনে স্তম্ভিত হয়ে যান পুলিশ কর্তারা। রূপা দত্তের কাছ থেকে যে ডাইরি উদ্ধার হয়েছে, তাতে কবে কত টাকা উঠিয়েছেন, তারও হিসাব রয়েছে। কিন্তু কেন তিনি এমন কাজ করছেন সেই বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অভিনেত্রী রূপা দত্তের একটি বড় চক্রও রয়েছে বলে অনুমান পুলিশের। কেন রূপা দত্তকে পকেটমারি করতে হচ্ছে, সেই কারণও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

২০০৫ সালে তিনি ‘সাথী’ সিনেমায় অভিনয় করেন। পরে পাড়ি দিয়েছিলেন মুম্বাইয়ে। সেখানে একাধিক সিরিয়ালে অভিনয় করেছেন তিনি। তবে জনপ্রিয় হন ‘জয় মা বৈষ্ণোদেবী’ সিরিয়ালে অভিনয়ের জন্য।

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button