ঝাড়গ্রাম

তৃণমূল আদিবাসী ও কুড়মি বিরোধী, ঝাড়গ্রামে বিজেপির সভায় সরব শুভেন্দু অধিকারী

স্বপ্নীল মজুমদার

তৃণমূল আদিবাসী ও কুড়মি বিরোধী, ঝাড়গ্রামে বিজেপির সভায় সরব শুভেন্দু অধিকারী

এবার লোকসভা ভোটে বিজেপিকে জিতিয়ে বাংলা থেকে তৃণমূলকে উৎখাত করার ডাক দিলেন বিজেপি নেতা তথা রাজ্য বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। শুক্রবার ঝাড়গ্রামের গজাশিমূল মাঠে বিজেপির প্রকাশ্য বুথ কর্মী সম্মেলনে শুভেন্দু বলেন, তৃণমূল আদিবাসী বিরোধী।

প্রথম আদিবাসী রাষ্ট্রপতি দৌপদী মুর্মুর নির্বাচনের সময় তৃণমূলের বিধায়করা যশোবন্ত সিংকে ভোট দিয়েছিলেন। অন্যদিকে, কুড়মিদের আদিবাসী তালিকাভুক্তির স্বপক্ষে রাজ্যের সিআরআই রিপোর্ট কেন্দ্র সরকার দশবার চিঠি দিয়ে চেয়ে পাঠালেও রাজ্য সাড়া দেয়নি বলে অভিযোগ করেন শুভেন্দু।

কুড়মিদের নিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে রাজনীতি করার অভিযোগ তুলে শুভেন্দু বলেন, মন্ত্রী বিরবাহা হাঁসদা, শহর তৃণমূলের সভাপতি নবু গোয়ালার অভিযোগের ভিত্তিতে দায়ের হওয়া মামলায় গত বছর কুড়মি নেতারা জেল খেটেছেন। এরপর শুভেন্দু প্রশ্ন করেন, যাঁরা আপনাদের সঙ্গে এমন করল তাদের সঙ্গে কি করা উচিত।

জনতার সঙ্গে শুভেন্দুও বলে ওঠেন তৃণমূলকে একটি ভোটও নয়। ঝাড়গ্রাম সহ জঙ্গলমহলের আসনগুলিতে কুড়মি সামাজিক সংগঠনের নির্দল প্রার্থী দেওয়া নিয়ে শুভেন্দুর অভিযোগ, আদিবাসী কুড়মি সমাজের নেতা অজিতপ্রসাদ মাহাতো, আদিবাসী নেগাচারী কুড়মি সমাজের অনুপ মাহাতোরা ভোট কেটে তৃণমূলকে সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার জন্য সেটিং করেছেন।

রাজ্যে ৫৪০০ ভুয়ো অযোগ্য শিক্ষককে বাঁচাতে ২৫ হাজার শিক্ষকের নিয়োগ বাতিল হওয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে দায়ী করেন শুভেন্দু। এদিন সভায় ছিলেন ঝাড়গ্রাম লোকসভার বিজেপি প্রার্থী প্রণত টুডু, বিজেপির জেলা সভাপতি তুফান মাহাতো, রাজ্য সম্পাদক উমেশ রায়, রাজ্য কমিটির সদস্য সুখময় শতপর্থী প্রমুখ।

বিজেপির জেলা মিডিয়া কনভেনর প্রশান্ত মজুমদার জানান, ঝাড়গ্রাম লোকসভার ২০,০২৯টি বুথ থেকে কর্মীরা এসেছিলেন।

আরও পড়ুন ::

Back to top button