ঝাড়গ্রাম

জেলা আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ, পাঁচ বছরের সমস্যা মিটল এক মাসে, মৃত স্বামীর ব্যাঙ্কে গচ্ছিত টাকা পেলেন স্ত্রী

স্বপ্নীল মজুমদার

জেলা আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ, পাঁচ বছরের সমস্যা মিটল এক মাসে, মৃত স্বামীর ব্যাঙ্কে গচ্ছিত টাকা পেলেন স্ত্রী

ঝাড়গ্রাম জেলা আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় স্বামীর মৃত্যুর পাঁচ বছর পর ব্যাঙ্কে গচ্ছিত টাকা পেলেন বেলিয়াবেড়া ব্লকের তালগ্রামের মীরা মুন্ডা। তাঁর স্বামী মহারাজ মুন্ডা তামিলনাড়ুতে একটি সংস্থায় শ্রমিকের কাজ করতেন।

২০১৯ সালে সর্পাঘাতে কর্মস্থলেই মৃত্যু হয় মহারাজের। চরম আর্থিক অভাবের কারণে স্বামীর দেহ গ্রামের বাড়িতে আনতে পারেননি মীরা। দিনমজুরি করে দুই নাবালক ছেলেকে নিয়ে সংসার চালান তিনি। স্থানীয় একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কে মহারাজের সেভিংস অ্যাকাউন্টে কিছু টাকা ছিল। কিন্তু ওই অ্যাকাউন্টে কোনও নমিনি না থাকায় টাকা তোলা যাচ্ছিল না।

ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ উত্তরাধিকার সংক্রান্ত আইনি শংসাপত্র আনতে বলেন মীরাকে। কিন্তু প্রান্তিক গ্রামের ওই মহিলার পক্ষে জেলা সদরে গিয়ে এসব ঝক্কি পোহানোর মত আর্থিক পরিস্থিতিও ছিল না। বিষয়টি জানতে পেরে এগিয়ে আসেন ব্লকের পার্শ্ব আইনি সহায়ক রিতা দাস দত্ত। তাঁর মাধ্যমে মীরার বিষয়টি জানতে পারেন জেলা আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষ।

মীরার আবেদনক্রমে আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষের সচিব তথা বিচারক সুক্তি সরকারের নির্দেশে উত্তরাধিকার সংক্রান্ত নথিপত্র তৈরি করিয়ে ব্যাঙ্কে জমা দেন রিতা। এরপরই শনিবার স্বামীর টাকা নিজের অ্যাকাউন্টে পেয়ে আপ্লুত মীরা বলছেন, ‘‘পাঁচ বছরের সমস্যার সমাধান হল এক মাসে!’’

আরও পড়ুন ::

Back to top button