মডেলিং

বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে ঝামেলা, মদ খেয়ে ফাঁস নিলেন মডেল!

বহুতল ভবনের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার করা হয়েছে উঠতি এক মডেলেরের মরদেহ। গতকাল শনিবার রাতে ফ্ল্যাট থেকে ওই তরুণীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পূজা সরকার (১৯) নামের ওই তরুণীর বাড়ি উত্তর ২৪ পরগনার গাইঘাটায়। তিনি গোবরডাঙা হিন্দু কলেজের ছাত্রী ছিলেন।

আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়, পড়াশোনার পাশাপাশি মডেলিং করতেন পূজা। অনেক রাত করে বাড়ি ফিরতেন। ওই ফ্ল্যাটে একসঙ্গে দুই তরুণ এবং দুই তরুণী থাকতেন বলে জানায় স্থানীয়রা। বন্ধুর সঙ্গে প্রায়ই ঝামেলা লেগে থাকত তার।

ফ্ল্যাট মালিকের দাবি, একজন বন্ধুর সঙ্গে পূজা ফ্ল্যাটটি ভাড়া নিয়েছিলেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গতকাল রাতে পূজা ও তার বান্ধবী ফ্ল্যাটে ছিলেন। গল্প করছিলেন তারা। সেসময় পূজার মোবাইলে তার বয়ফ্রেন্ডের ফোন আসে। তখন তিনি একটু দূরে গিয়ে কথা বলেন। ফোনে পূজাকে চিৎকার করতে শুনেছিলেন তিনি। তারপর পূজা অনেক রাত পর্যন্ত মদপান করেন। রাতে দীর্ঘক্ষণ মদপানের পর পূজা বসেছিলেন। বান্ধবী তাকে ঘুমাতে যাওয়ার কথা বললেও তিনি শোনেননি। পরে পূজা নিজের ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন।

সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর পূজার বান্ধবী তাকে অনেকক্ষণ ডাকাডাকি করেন। কিন্তু কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে ঘরের জানালা দিয়ে দেখেন, পূজা গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আছে। পরে বাঁশদ্রোণী থানায় ফোন করে বিষয়টি জানান। পুলিশ এসে মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য এম আর বাঙ্গুর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এর আগে গরফায় ‘আমি সিরাজের বেগম’ খ্যাত অভিনেত্রী পল্লবী দের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। নাগেরবাজারের বাড়ি থেকে ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয় আর এক উঠতি মডেল বিদিশার। পাটুলির বাড়ি থেকে অভিনেত্রী মঞ্জুষা নিয়োগীর অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়। কসবায় আরও এক উঠতি মডেল সরস্বতীর দেহ উদ্ধার ঘিরেও রহস্য কাটেনি এখনো। এর মধ্যেই উঠতি মডেল পূজার মৃত্যু।

আরও পড়ুন ::

Back to top button